ইথিলার অপেক্ষায়

কোকিলের গান থেমে গেল,

গাছে গাছে ফুল ও ঝরে গেল,

নারকেলের পাতায় সুর তোলা

অনলও দমে গেল।

আমি ইথিলার আসার পথ চেয়ে থাকলাম,

কিন্তু ইথিলার আসার সময় হলো না।

 

ইথিলার হাতে হাত রেখে

তপ্ত রৌদ্র গায়ে মেখে

হেটে যাব রমনা থেকে টিএসসির চত্বরে

কিন্তু আক্ষেপ আমার, ইথিলা আসলো না,

ভালবাসার উষ্ণ অনুভুতি পাওয়া হলো না।

 

পাশাপাশি ইথিলা আর আমিতে

শহরের নির্জন কোন গলিতে

চোখে চোখ রেখে ভিজব আশাঢ়ের বৃষ্টিতে,

এই ছিল মনে কিঞ্চিত স্বাদ।

বৃষ্টি ভিজিয়ে ভিজিয়ে একাকার করে দিল

আবার সূর্য সব শুষে নিল

কিন্তু ইথিলা আসেনি।

 

পড়ন্ত কোন বিকালে, সবুজের সমারোহে

দুজনের সময় কেটে যাব ভাল বাসার খুনসুটিতে।

বিকাল গড়িয়ে হলো চারদিক অন্ধকার

কিন্তু দেখা পেলাম না ইথিলার।

 

শরতের আকাশে হলদে মেঘ উড়ে উড়ে

চলে যাবে বহুদূরে,

আশা ছিল ইথিলাকে রাঙ্গাবো

হলুদ মেঘের রঙ্গে।

দীর্ঘশ্বাস আমার, ইথিলা আসে নি।

 

ইথিলাকে পাশে পাইনি

কোনো জোছনা ভরা রাতে।

দেখেছি চাঁদের সাথে তারাদের মিতালি

কিন্তু থাকেনি ইথিলা সাথে।

 

হাড় কাপানো কোন শীতের সকালে

যখন পথ ভেজা ছিল শিশিরের জলে

আমি হেটেছি একা উলঙ্গ পায়ে,

কিন্তু ইথিলা আসেনি একটুকু

শীতের পরশ দিতে।

 

 

 

 

 

0
0
  

বাংলায় মতামত দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না *

*


*

বাংলায় লেখার জন্য Phonetic এ ক্লিক করুন

Protected by WP Anti Spam