কখনো কখনো নিজেকে বোবা মনে হয়

কখনো কখনো নিজেকে বোবা মনে হয়, যখন ভাষা হারাই। সত্যি কথা বলতে নাপারা একজন মানুষ আর কথা বলতে নাপারা মানুষের মধ্যে পার্থক্য কি? বলতে পারেন?

যখন অন্যায় দেখে মুখে ভাষা থাকে না। ঠিক যে ভাষা থাকে না তা কিন্তু নয়। বলা যায় না। কোথায় বলি, কেই বা শোনে! আবার বলতে গেলেও কে কোন ভাগে ফ্যালে। পুরো জাতিটা তো এখন দুই ভাগ। দুই ভাগের লোকেরাই মনে করছে তারা নিজেরেই সঠিক পথে আছে। কিন্তু অত্যাচার আর রাজনৈতিক কি এ্যাক ?

সরকারের প্রত্যেকটি যন্ত্রের দাসত্বনীতির বিরুদ্ধে কথা বলতে গেলে কেউ কেউ মনে করে, আমি ওই দলে। আবার যুদ্ধঅরাধের কথা বলতে গেলেও পড়ে গেলাম অন্য দলে। আমরা যারা কোন দলেরই নয় তারা এখন যাবোটা কোথায়। যা দেশেকে ভালবেসে দু’চারটা সত্যি কথা বলার অভ্যাস করছে, তারাদে বিড়ম্বনার তো আর কোন শেষই নেই!

এদেশে রিক্সা চালক হতে শুরু করে ইউনিভার্সিটির প্রধান পর্যন্ত বিশাল রাজনীতিবিদ। গাতকাল আওয়ামিলীগের আবুসাইদ স্যার খুব একটা ভাল কথা বলেছেন। দেশে তো এখন আর রাজনীতিবিদ নেই। আছে রাজীনীতিজীবি! আর একটা কথা। এদেশের সামাজিক মানুষে অভাব পড়েছে। দেশে বাচাতে সামাজিক মনুষের খুবই দারকার হযে পড়েছে। রাজনিতিকরা তো কম দেখালো দেখালো না এতো বছর ধরে।

0
0
  

বাংলায় মতামত দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না *

*


*

বাংলায় লেখার জন্য Phonetic এ ক্লিক করুন

Protected by WP Anti Spam